গুগল এডসেন্স আবেদন করার পূর্বে লক্ষণীয় বিষয় সমূহ

Google Adsense পাবার উপায়

গুগল এডসেন্সকে অনেকে সোনার হরিণ বলে তুলনা করেছেন।সবাই গুগল এডসেন্স পেতে চায়। কিন্তু, সবাই এডসেন্স পেতে  চাইলেও এডসেন্স পায় না। শুধুমাত্র যারা কৌশল পাবার জানে তারাই এডসেন্স পায়। বাকিরা এডসেন্স না পেরে হা হুতাশ করে এবং অনলাইন জগতের বদনাম করে।প্রতিটি কাজের মত গুগল এডসেন্স পেতে হলেও বেশ কিছু কৌশল মেনে চলতে হয়। কৌশলগুলো মেনে চললে গুগল এডসেন্স পাবেনই পাবেন। কিন্তু, এই কৌশলগুলো অনেকেরই অজানা রয়েছে। এই পর্বে আমরা গুগল এডসেন্স পাবার কৌশলগুলো জানার চেষ্টা করব। চলুন জেনে নেই Google Adsense পাবার উপায় ।

 

Content এর Niche:-

Google Adsense Apply করার পূর্বে কি ধরনের কন্টেন্ট আপনার ব্লগে প্রকাশ করছেন তা সর্বদা খেয়াল রাখতে হবে। একটি Website এ যেকোন একটি বিষয়ে Content লেখাই উত্তম। একটি সাইডে একসাথে একাধিক বিষয়ে কন্টেন্ট লিখবেন না।  একটি Niche টার্গেট করে Blog Content লিখতে থাকুন। অনলাইন ইনকাম, স্পোর্টস, হেল্থ, নিউজ, টিপস এন্ড ট্রিক্স ইত্যাদি যে বিষয়েই লেখেন , সর্বদা একটি বিষয়ে Content লিখতে থাকুন।

 

Content এর ধরন:-

Content অবশ্যই  Copy, Past বিহীন এবং শতভাগ Copyright free হতে হবে। Google অরজিনাল কন্টেন্ট বিহীন কোন সাইডে Adsense Approve দিতে চায় না।  তাই অরজিনাল কন্টেন্ট বিহীন কোন সাইড বার বার Adsense Apply করার পরও Approve পেতে ব্যর্থ হয়। তাই, Adsense Approve পেতে হলে অবশ্যই অরজিনাল এবং শতভাগ কপিরাইট ফ্রি কন্টেন্ট লিখতে হবে। Content অবশ্যই দৃষ্টিনন্দন ও তথ্য সমৃদ্ধ  ভাবে লিখবেন। খেয়াল রাখবেন, কন্টেন্টের সাথে File (Audio, Video,  Photo, Document) Attach করলে সেগুলোও যেন কপিরাইট ফ্রি ও অরজিনাল হয়। কোনভাবেই Copyright free নয় বা Duplicate Content ব্লগে পাবলিশ করবেন না। এছাড়াও Hacking, Porn, Gambling বা অবৈধ কিছু নিয়ে লেখা Article ব্লগে পাবলিশ করা হতে বিরত থাকবেন। সব সময় স্বাভাবিকভাবে Blog লেখার চেষ্টা করবেন।

 

Quality Resource Content:-

আপনার ব্লগের Content অবশ্যই হতে হবে সঠিক, তথ্যবহুল এবং Informative. তথ্যহীন, খুব বেশি Informative নয় অথবা ভুয়া এমন কোন Content আপনার ব্লগে Publish করা হতে বিরত থাকুন। Content বিষয়বস্তু ছোট বড় যাই হোক না কেন, তাই খুটিয়ে খুটিয়ে বিস্তারিতভাবে লেখার চেষ্টা করুন। তথ্যবহুল এবং Informative করার চেষ্টা করুন।তবে খেয়াল রাখবেন, Content তথ্যবহুল করতে গিয়ে এক কথা বার বার লিখবেন না। তথ্যবহুল, User পড়ে মজা পায় এবং তাদের কাজে লাগে এমন Content লেখার চেষ্টা করুন।  আজেবাজে বিষয় নিয়ে Content লিখবেন না। কন্টেন্ট ইউজার ফ্রেন্ডলি এবং SEO Friendly করে লেখার চেষ্টা করুন।

 

সাইডের ডিজাইন এবং নেভিগেশন

Adsense আবেদনের পূর্বে সাইডের ডিজাইন এবং নেভিগেশনের দিকে লক্ষ্য রাখাটা অতন্ত্য জরুরী। আপনি এবং আপনা Website কতটা Profetional তা আপনার Website Design দেখেই বোঝা যায়। আপনার Website টি এমনভাবে Design করবেন যাতে Website  টি বেশ পুরাতন বলে মনে হয়। দেখে যেন  Under Construction Website মনে না হয়। উৎকট কালার, অতিরিক্ত কালারফুল ব্যাকগ্রাউন্ডে ডিজাইন করা সাইড, অগোছালো বা Under Construction Website গুগল Adsense পাবার যোগ্য নয়। এ ধরনের সাইডে গুগর Adsense দিতে চায় না। 90% ক্ষেত্রে Reject করে দেয়।  তাই খুব সতর্ক  হয়ে কাজ করতে হবে। এছাড়াও সাইডের নেভিগেশন অংশ (Menu bar) অনেক সহজ এবং আকর্ষনীয় হতে হবে। Website প্রতিটি page এবং Link যেন standerd হয় সে বিষয়ে খেয়াল রাখতে হবে। সাইডকে ১০০% ফ্রেশ এবং ক্লিন করে তারপর Adsense  আবেদন করুন।

 



আপনার ভালো লাগতে পারে:-

GPS Tracker কি এবং কিভাবে কাজ করে

WordPress Website হ্যাক থেকে বাচার উপায়



 

Create Some Important Webpage

  • About US:- একটি সাইডের About US Page টি সাইডের জন্য অতন্ত্য গুরুত্বপূর্ন। About US Page মূলত সাইডের অভন্তরীন বিষয়ে আলোচনা করে। সাইডটি শুরুর ইতিহাস, উল্লেখযোগ্য ঘটনা, সাইডের Author, কার লেখালেখির বিষয় কি এসকল বিষয় About US Page এ লেখা থাকে। Adsense আবেদন  করার পূর্বে সাইডের About US Page টি তৈরী করে নেয়াটা অতন্ত্য জরূরী। সাইডে যদি About US Page না থাকে তাহলে Adsense আবেদন  করে কোন লাভ নেই। অধিকাংশ ক্ষেত্রে Adsense আবেদন  Reject করে দেবে। তাই Adsense আবেদন  করার পূর্বে সুন্দর এবং আকর্ষনীয় একটি About US Page তৈরী করে নিতে হবে। অভিজ্ঞতা না থাকলে আপনার নিস রিলেটেড কয়েকটি Website এর About US Page থেকে idea নিতে পারেন।
  • Privacy & Policy:– Privacy & Policy page টি সাইডের ভিজিটর এবং পাঠকদের উদ্দেশ্যে তৈরী করা হয়। সাইডের ভিজিটর এবং পাঠক কি রকম আচরন করবে, কি কি করতে পারবে, কি কি করতে পারবে না, সাইডে কি করলে কি হবে এবং আপনি আপনার সাইডটি কিভাবে ব্যবহার করবেন তা Privacy & Policy Page এ আলোচনা করা হয়। অনেকেই আছে Privacy & Policy Page টিকে তেমন গুরুত্ব দেয় না। Page টি এড়িয়ে চলে। কিন্তু গুগলের কাছে Privacy & Policy Page টির গুরুত্ব অনেক বেশি।গুগল এডসেন্স পেতে হলে অবশ্যই সাইডে Privacy & Policy Page থাকতে হবে। একটু চেষ্টা কররে আপনি নিজেউ আপনার সাইডের জন্য Privacy & Policy Page তৈরী করতে পারবেন।না পাররে বেশ কিছু সাইডের Privacy & Policy Page দেখে ধারনা নিয়ে সে অনুযায়ী তৈরী করতে পারেন।
  • Contact Us:- Contact US Page হলো সাইডের Author এবং Visitor দের যোগাযোগের সেতুবন্ধন। Privacy & Policy Page এর মাধ্যমে আপনার ভিজিটর আপনার সাথে যোগাযোগ করার সুযোগ পায় এবং বিভিন্ন ধরনের সমস্যার সমাধান পেয়ে থাকে। যেটা কিনা গুগল অনেক পছন্দ করে। গুগল এডসেন্স পাওয়া বা ভিজিটরদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা আপনার উদ্দেশ্য যেটাই হোক না কেন, সাইডে Privacy & Policy Page থাকাটা অতন্ত্য জরূরী।

 

Use Top Laval Domain:-

Adsense Approve পাওয়ার আরেকটি বড় শর্ত হচ্ছে Top Laval Domain ব্যবহার করা। Adsense Approve পেতে হলে অবশ্যই  Top Laval Domain (.com /.net /.org /.top /.xyz /.com.bd /.org.bd) ব্যবহার করতে হবে।Free Domain (.tk /.gq /.ml /.cf) অথবা Sub Domain (.blogspot.com /.wordpress.com /.weblly.com) দিয়ে Approve পাওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম। একটা সময ছিল যখন Free Domain অথবা Sub Domain দিয়ে কাজ করলেও Adsense Approve পাওয়া যেত।কিন্তু, এখন আর Adsense Approve পাওয়া যায না।এই ধরনের ডোমেইন দিয়ে কাজ করলে গুগল এখন স্প্যাম হিসেবে গণ্য করে এবং Adsense দিতে চায় না। যারা এ ধরনের ডোমেইন (Free, Sub Domain) দিয়ে Adseance পাওয়ার স্বপ্ন দেখেছিলেন তারা এই স্বপ্ন ভুলে যান। তারাতার একটি Top Laval Domain কিনে ব্লগে ব্যবহার শুরু করুন। এত আপনার দুইটি লাভ হবে।

  • ভিজিটর এবং গুগল উভয়ের কাছে আপনার সাইড ট্রাস্টেড মনে হবে। ফলে ট্রাফিক এবং Adsense দুটোই পাবার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।
  • SEO তে অনেক সাহায্য করবে।

 

অনান্য বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্ক:-

গুগল অ্যাডসেন্সের মতো আরও অনেক বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্ক রয়েছে । যারা বিভিন্ন ধরনের সাইডে বিজ্ঞাপন দিতে আগ্রহ প্রকাশ করে থাকে। যেমন:- (ক্লিকসর, ইয়াহু, এডব্রাইট, বিডভার্টাইজার ইত্যাদি)। এগুলো থেকেও গুগল অ্যাডসেন্সের মতো ইনকাম করা যায়। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে, একটি সাইডে একাধিক বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্কের এড ব্যবহার করা যায় না। এড বসালে আর অ্যাডসেন্স পাবেন না। অ্যাডসেন্স পাবার পর একাধিক নেটওয়ার্কের এড একসাথে বসালে অ্যাডসেন্স চলে যাবার সম্ভাবনা থাকে। সাইডে অনান্য নেটওয়ার্কের এড থাকলে তা আপাতত রিমুভ করে দিয়ে তারপর Adsense Apply করুন। সাইকে কোন প্রকার এ্যাফিলিয়েট লিংক থাকলে তা আপাতত রিমুভ করে দিন। সম্পূর্ণ রিক্স ফ্রি হয়ে তারপর Adsense Apply  করুন।

 

কিছু গুরুত্বপূর্ণ ট্রিকস:-

  • Adsense Apply করার পূর্বে আপনার সাইডে সর্বনিন্ম ২০ থেকে ২৫ টি ইউনিক কন্টেন্ট পাবলিশ করুন।
  • কন্টেন্টের সাইজ সর্বনিন্ম ৩০০ শব্দ এবং সর্বোচ্চ যতটা সম্ভব বড় করুন।
  • সাইড খুলেই Adsense Apply করবেন না। সাইডের বয়স বাড়তে দিন। সাইডের বয়স কমপক্ষে ৩ মাস হবার পর Adsense Apply করবেন।
  • মোটামুটি ভাল সিপিসি আছে এবং হাই কম্পিটিটিভ কিওয়ার্ড টার্গেট করে কন্টেন্ট লেখার চেষ্টা করুন।
  • সাইডের সবগুলো পোষ্ট যেন সার্চ ইঞ্জিনে ইনডেক্স হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। নিয়মিত সোসাল মিডিয়াতে (facebook, twitter, linkdin, printerest etc) শেয়ার করুন। সাইডের ট্রাফিক বাড়ান।
  • একটি বিষয়ের উপর একাধিক পোষ্ট করবেন না।
  • যতটা সম্ভব SEO করুন এবং সাইডের ট্রাফিক বাড়ান।

 

উপরে আলোচিত বিষয়গুলো আপনার সাইডে যথাযথভাবে ইমপ্লিমেন্ট করার পর Adsense Apply  করুন। সবকিছু ঠিকভাবে করতে পারলে ১০০% এডসেন্স পাবেন ইনশাল্লাহ। আগামি পর্বে অন্য কোন বিষয় নিয়ে হাজির হব। সে পর‌্যন্ত ভাল থাকবেন। খোদা হাফেজ।

Google Adsense পাবার উপায়

Google Adsense পাবার উপায়

Leave a Reply